কলাপাড়ায় মিথ্যা ও অসত্য তথ্য সম্বলিত সাংবাদিক সম্মেলনের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন।

0
72
কলাপাড়ায় মিথ্যা ও অসত্য তথ্য সম্বলিত সাংবাদিক সম্মেলনের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন।

মাসুম বিল্লাহ, কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় মিথ্যা ও অসত্য তথ্য সম্বলিত সাংবাদিক সম্মেলনের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে। সোমবার (১ ফেব্রæয়ারী) সকাল ১০ টায় কলাপাড়া রিপোর্টার্স ক্লাবের হল রুবে এ সংবাদ সম্মেলন করা হয়। সহোদর আপন দুই ভাই রেজাউল করিম ও আবুল কালাম জাল-জালিয়াতি করে মো. সাইদুর রহমানের পৈত্রিক ও ক্রয়কৃত সম্পত্তি তাদের নিজ নামে নেয়ার চেষ্ঠায় লিপ্ত হয়ে মিথ্যা ও অসত্য তথ্য দিয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করায় তার প্রতিবাদে প্রকৃত তথ্য উপস্থাপন করে সাংবাদিক সম্মেলন করেন ভ‚ক্তোভোগী মো. সাইদুর রহমান।

লিখিত বক্তব্যে তিনি জানান, আমার ভাই রেজাউল করিমের কাছ থেকে ২০০২ সালের ৭ জানুয়ারি খেপুপাড়া সাব-রেজিষ্ট্রার অফিসে রেজিষ্ট্রিকৃত ৭৫ নং সাফ কবলা দলিল মূলে ধানখালী মৌজা, এস.এ ১৬২ নং খতিয়ান থেকে এক একর জমি সাফ কবলা দলিল মূলে ক্রয় করে এবং ২০০৩ সালে আমার ছেলে ফজলুল করিমের নামে আবুল কালামের কাছ থেকে ধানখালী মৌজার এস এ ১৬২ খতিয়ান থেকে ১.৯০ একর জমি খেপুপাড়া সাব রেজিষ্ট্রার অফিস রেজিষ্ট্রিকৃত ১৬৫১ নং সাফ কবলা দলিলমূলে মোট ২.৯০ একরজমি ক্রয় করি। আমি ব্যবসায়িক কারনে কলাপাড়া অবস্থান করার সুবাদে আমার ও আমার ছেলের নামে ক্রয়কৃত উক্ত জমি আমার ভাই আবুল কালাম মৃধা সর্বশেষ বি.এস জড়িপে আমাদের নাম রেকর্ডভুক্ত করার জন্য আমার কাছ থেকে বিশ হাজার টাকা এবং ক্রয়কৃত জমিরমূল দুই খানা দলিল নিয়ে যায়। দলিল ও টাকা নিয়ে বি.এস জড়িপে আমার ও আমার ছেলের নাম অন্তর্ভূক্তনা করে রেজাউল করিম ও আবুল কালাম মৃধা যোগ সাযোশে উক্ত জমির দাতা হয়ে ও তাদের নামে বি,এস রেকর্ডভুক্ত করেন। উক্ত রেকর্ড সংশোধনের জন্য বর্তমানে

জেলাযুগ্ম দায়রা জজ আদালতে মামলা চলমান রয়েছে। যাহার মামলা নং ১৮৯/২০২০ পটুয়াখালী যুগ্ম জজ আদালত। একই সঙ্গে আমাদের উক্ত ক্রয়কৃত ও আমার মা ফজিলাতুন নেছার মৃত্যুতে ওয়ারিশ সূত্রে প্রাপ্ত জমি এবং ছত্তার আকনের জমিসহ প্রায় ৩.০৬ একর জমি ধানখালীতে আরপিসিএল এর ১৩২০ মোগাওয়াট তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মানের জন্য অধিগ্রহন করে। অধিগ্রহনের টাকা রেজাউল করিম ও আবুল কালাম মৃধা আত্মসাৎ করার জন্য আমাদের মালিকানা জমি গুলো আমাদের কাছে বিক্রি করেনি বলে অস্বীকার করে। অথচ আমারও আমার ছেলের নামে ক্রয়কৃত জমি আমাদের কাছে বিক্রি করেছেন সে বিষয়টি পটুয়াখালী যুগ্ম জজ আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেন। যাহার স্বীকারোক্তি মূলক বক্তব্যের মোকাদ্দমানং ১২৭/২০১৪ নথিভুক্ত আছে।

লিখিত বক্তব্য তিনি আরো বলেন, ২০ জানুয়ারী ২০২১ তারিখ সন্ধ্যায় উক্ত জমি জমা বিষয়ে বিরোধে ক্ষিপ্ত হয়ে অতি কৌশলে অটোরিক্সা যোগে দেশীয় নানা অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে আমার ভাই রেজাউল করিম ও তার ছেলে ইলিয়াস সহ অন্যান্যরা আমাকে খুন-যখমের উদ্দেশ্যে আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সম্মুখে এসে হামলার চেষ্ঠা চালায়। এ ঘটনায় কলাপাড়া নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। বর্তমানে ভুক্তোভোগী মো. সাইদুর রহমান ও তার ওয়ারিশগন নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। তারা এবিষয়ে গনমাধ্যমকর্মীদেরু মাধ্যমে আইনী সহায়তা ও ন্যায় বিচারের আবেদন জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here