জলঢাকায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জমি ও গৃহ উপহার পেলেন ১৯১ পরিবার

0
4
জলঢাকায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জমি ও গৃহ উপহার পেলেন ১৯১ পরিবার

আনোয়ার হোসেন, জলঢাকা প্রতিনিধি: মুজিববর্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে আশ্রয়স্থল পেলেন নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার ১ শত ৪১ জন ভূমিহীন ও গৃহহীন দরিদ্র পরিবার। আজ শনিবার (২৩ জানুয়ারী) সকালে উপজেলা পরিষদ হলরুমে সরকার প্রধানের দেয়া প্রতিশ্রুতির অংশ হিসাবে জলঢাকা উপজেলার এসব দরিদ্র পরিবারের হাতে ঘরের যাবতীয় কাগজপত্র তুলে দেন স্থানীয় সংসদ সদস্য মেজর (অবঃ) রানা মোহাম্মদ সোহেল। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুব হাসানের সভাপতিত্বে এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহেদ বাহাদুর, সহকারী কমিশনার (ভূমি) সিফাত মোঃ ইশতিয়াক ভুঁইয়া, উপজেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক সহীদ হোসেন রুবেল, ভাইসচেয়ারম্যান মনোয়ারা বেগম, উপজেলা প্রকৌশলী আব্দুর রউফ, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ময়নুল হক, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ আবু হাসান মোঃ রেজওয়ানুল কবীর, উপজেলা চেয়ারম্যান সমিতির সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন তুহিন, ওসি তদন্ত ফজলুর রহমান, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক সারোয়ার হোসেন সাদের, স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারন সম্পাদক মশিউর রহমান বাবু ও উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আজম সরকার প্রমুখ।
উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, ২০২০-২০২১ অর্থবছরে উপজেলার সরকারের খাস জমিতে এই সকল সেমিপাকা বসত ঘর তৈরী করা হয়। যার মধ্যে দুটি কক্ষ ও একটি করে বারান্দা, বাথরুম ও রান্নাঘর রয়েছে। দুই শতাংশ জমির উপর নির্মিতব্য প্রতিটি ঘরের জন্য বরাদ্দ এক লাখ ৭১ হাজার টাকা করে। প্রতিটি ঘরের নির্মান সামগ্রী পরিবহনের জন্য ব্যয় হয় চার হাজার টাকা। এই প্রকল্পে ভিক্ষুক, প্রতিবন্ধী, বিধবা, স্বামী পরিত্যাক্তা, যাটোর্দ্ধ প্রবীণ ভূমিহীন ব্যক্তিদের উপকারভোগী হিসেবে বাছাই করা হয়।
পরে এমপি রানা গোলনা ইউনিয়নের কালিগঞ্জ এলাকায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার বসতঘরের দলীলপত্র ২৭ জনের মাঝে তুলে দেন। এছাড়াও উপজেলার ধর্মপালে ১২ টি, শিমুলবাড়ী ২০ টি, মিরগঞ্জ ২৬ টি, কৈমারী ৪১টি, শৌলমারী ১৫ টি ও গড় ধর্মপাল আশ্রয়ন ব্যারাকে ৫০ টি পরিবারের মাঝে দলীলপত্র তুলে দেওয়া হয়। প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ন – ২ প্রকল্পের আওতায় এসব ঘর নির্মান করে উপজেলা প্রশাসন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here