টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে দেবরের ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা ভাবি

0
13
টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে দেবরের ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা ভাবি

সাইফুল ইসলাম, টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে বড় ভাইয়ের স্ত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠে এসেছে দেবরের বিরুদ্ধে। এতে ধর্ষণের শিকার ঐ ভাবি সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে চরম বিপাকে পড়েছেন। এতে ন্যায়বিচারের জন্য দুই শিশুসন্তান নিয়ে ঘুরছেন দ্বারে দ্বারে। এই ধর্ষণ ঘটনার ন্যায়বিচার চেয়ে তিনি টাঙ্গাইলের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতে দেবরকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেছেন। এতে টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার ওয়াশি ইউনিয়নের বরুটিয়া গ্রামে ধর্ষণ ঘটনাটি ঘটেছে।

ঐ প্রবাসীর স্ত্রী জানান, গত ১১ বছর আগে বরুটিয়া গ্রামের ওই দম্পতির বিয়ে হয়। তাদের ঘরে দুই সন্তান (এক ছেলে ও এক মেয়ে)। এতে গৃহবধূ অভিযোগ করেন তার জামাই (স্বামী) বিদেশ থাকায় তার দেবর দীর্ঘদিন ধরে নানাভাবে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন এবং গত ২৮ শে জুলাই রাতে দুই সন্তান নানার বাড়িতে বেড়াতে যায়। ঘরে একা পেয়ে লম্পট দেবর তাকে ধর্ষণ করেন।

বিষয়টি শাশুড়ি রাবেয়া বেগমকে জানালে তার ছেলেকে রক্ষার স্বার্থে পুত্রবধূকে শিশু সন্তানসহ তাড়িয়ে দেওয়ার ভয়ভীতি দেখিয়ে বিষয়টি গোপন রাখতে বলেন। এমনকি ঐ দেবর ভয়ভীতি দেখিয়ে মাঝমধ্যেই ভাবিকে ধর্ষণ করায় গৃহবধূ ৭ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন। আর এই বিষয়টি নিয়ে গ্রাম্য সালিশ হলেও মীমাংসা হয়নি বরং উপায় না দেখে তিনি আদালতে মামলা করেন।

এ বিষয়ে ভাওড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. আমজাদ হোসেন জানান, বিষয়টি তাদের পারিবারিক ঘটনা ও জটিল বিষয়ের কারণে তাদের আইনের আশ্রয় নিতে বলা হয়েছে।

মমালার আইনজীবী মো. সাইদুর রহমান বলেন, টাঙ্গাইলের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতে ওই গৃহবধূর ২৯৭ নম্বর মামলাটি দায়ের করে ডিবিতে পাঠানো হয়েছে।

টাঙ্গাইলের ডিবির উপপরিদর্শক মো. আলমগীর হোসেন জানিয়েছেন, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের গৃহবধূর করা মামলাটি এখন পর্যন্ত হাতে আসেনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here