নাটোরে শহরে এক সন্তানের জননীর রহস্যজনক মৃত্যু

0
42
নাটোরে শহরে এক সন্তানের জননীর রহস্যজনক মৃত্যু

রাশিদুল ইসলাম, (নাটোর) প্রতিনিধি: নাটোর শহরের মীরপাড়া মহল্লায় পরিবারের লোকজন বারিষা বেগম (২০) নামের এক গৃহবধূর মৃত্যুর ঘটনাটি আত্মহত্যা বলে প্রচার করলেও রহস্যজনক মৃত্যু ঘিরে সন্দেহের সৃষ্টি হয়েছে। বারিষা বেগমের আত্মীয়-স্বজনের অভিযোগ এটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড গতকাল রোববার (২৪ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় বারিষার মৃতদেহ মীরপাড়ার ভাড়া বাসা থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করে নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেছেন।

বারিষা বেগমের স্বামীর নাম শহিদুল ইসলাম সোহান। তিনি নাটোর শহরের মীরপাড়া শহিদুল ইসলাম সোহেলের ছেলে। তাদের সংসারে তালাহ নামের ২ বছরের একটি পুত্র সন্তানও রয়েছে। আর বারিষা নাটোর শহরের আলাইপুর মহল্লার রাকিবুল হাসানের মেয়ে। নিহতের পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বিয়ের পর থেকেই গৃহবধূ বারিষাকে তার স্বামী শহিদুল ইসলাম ও তার পরিবারের লোকজন ছোট-খাটো বিষয় নিয়ে মারধরসহ নানাভাবে নির্যাতন করতো। গৃহবধূ বারিষা সন্তানের সন্তানের ভবিষ্যতের কথা ভেবে সব কিছু নীরবে মুখ বুঝে সহ্য করে আসছিলো। কিন্তু তাদের এ নির্যাতন দিন দিন বেড়েই চলছিলো। এরই এক পর্যায়ে রোববার সন্ধ্যায় বারিষার মৃতদেহ মীরপাড়ার ভাড়া বাসা থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করে নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নাটোর আধুনিক হাসপাতালে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, গৃহবধূ বারিষাকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। এছাড়া হাসপাতালে আনার অনেক আগেই গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে বলেও নিশ্চিত করেন তারা। নাতনী হত্যার বিচার চেয়ে নিহত বারিষার নানা ও জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাচ্চু অভিযোগ করেন, বারিষার স্বামী সোহান ও তার পরিবারের লোকজন মারধর করে হত্যা করে তার নাতনীর গলায় রশি দিয়ে পরিকল্পিতভাবে নাটক সাজিয়ে হাসপাতালে নিয়ে গেছে। এমনকি অন্য লোকের মাধ্যমে তাদেরকে বারিষার মৃত্যুর খবর দেয়া হয় বলেও জানান তিনি। সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

এদিকে খবর পেয়ে নাটোর থানা পুলিশ হাসপাতাল থেকে নিহত গৃহবধূ বারিষার লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য হাসপাতালে পাঠিয়ে দিয়েছে। এছাড়া নিহত গৃহবধূর স্বামী সোহানকে থানা পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে বলেও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে। বিষয়টি নিশ্চিত করে নাটোর সদর থানার ওসি (তদন্ত) আব্দুল মতিন জানান, হাসপাতাল থেকে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনার পর নিহত গৃহবধূর স্বামী সোহানকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। তদন্ত শেষে মৃত্যুর সঠিক রহস্য জানা যাবে বলেও জানান তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here