মতলবে তেল চুরির ভিডিও ধারণের সংবাদকর্মীর উপর হামলার ঘটনাকে ধামাচাপা দেওয়ার জন্য গণস্বাক্ষর

0
22
মতলবে তেল চুরির ভিডিও ধারণের সংবাদকর্মীর উপর হামলার ঘটনাকে ধামাচাপা দেওয়ার জন্য গণস্বাক্ষর

মতলব প্রতিনিধি: চাঁঁদপুর জেলার ক্রাউন সিমেন্ট মোশারফ হাজী এন্টারপ্রাইজের পরিবহনে ব্যবহৃত একটি ট্রাক থেকে চোরাই ভাবে গাড়ির ড্রাইভারের ভিডিও ধারণ করেন সংবাদকর্মী মো: তপছিল হাছানের উপর চোরাই তেল কিনতে না পেরে গত (১২ ডিসেম্বর) বিকাল ৩ তিন ঘটিকার সময় মতলব পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ডের পৈলপাড়া নুর হোসেনের দোকানের সামনে এ ঘটনা ঘটে। ঐ হামলার শিকার সাংবাদিক তপছিল হাছান সুস্থ হয়ে। নিজে বাদী হয়া চাঁদপুর জেলা কোটে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সি আর মামলা নং ২৮ তিন জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। আর তেল চুরি ঘটনা কে দামা চাপা দেওয়ার জন্য এলাকার লোকজনের কাছ থেকে সাদা কাগজে সাক্ষর নেওয়াতে সাক্ষর কারিদের মধ্যে আতংক বিরাজ করছে।

জানা যায়, মতলব বাবুরহাট পেন্নাই সড়কের মতলব পৌরসভা পৌইলপারা এলাকায় ফরহাদ স্টোরে জ্বালানি তেল সিলিন্ডার গ্যাস ও মুদি মালের ব্যবসা করে আসছেন চোরাই তেল কারবারি নজরুল ইসলাম ওরফে নজু। লাইসেন্স ও অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থা ছাড়াই তেল ও সিলিন্ডার গ্যাস বিক্রি করে আসছে সে। ঘটনার সময় ক্রাউন সিমেন্টের চাঁদপুর জেলার ডিলার মোশারফ হোসেনের ট্রাক চালক বিপ্লব ওই দোকানে অবৈধভাবে তেল বিক্রি করছিল। আর এই তেল বিক্রির ভিডিও ধারণ করেন সাংবাদিক তপছিল হাছান।

পরবর্তীতে গাড়ির চালকের নাম ঠিকানা জানতে চাইলে দোকানদার(১) নজরুল ইসলাম ও তার বড় ছেলে(২) ফয়েজ (৩) ফয়েজ বাধা দেয়। আর এই সুযোগে চালক তার গাড়ি নিয়ে ঘটনাস্থল থেকে গাড়ি নিয়ে পালিয়ে যায়। চোরাই তেল বিক্রির বিষয়ে দোকানদারকে সাংবাদিক তপছিল হাছানকে প্রশ্ন করেন নুজরুল ইসলান ঐ সুযোগে তারা অশোভন আচরণ করেন এবং এই ফাঁকে (২)ফয়েজ সুযোকে সাংবাদিক তপছিল হাছানের পিছন থেকে মাথায় মোটরসাইকেলের মধ্যে থাকার এসএসসের ফাইভ দিয়ে এলোপাতাড়ি মাথায় আঘাত করে। পরবর্তীতে তপছিল হাছানকে চোরাই কারবারি নজরুল ও তাহার ছোট ছেলে ফরহাদ মিলে ডেকে আনেন। পরে তারা অতর্কিতভাবে সাংবাদিকদের উপর হামলা চালিয়ে রক্তাক্ত জখম করে।

সাংবাদিক তপছিল হাছান বলেন, গাড়ি থেকে তেল বিক্রি করার বিষয়টি আমি ভিডিও ধারণ করেছিলাম। পরবর্তীতে ওই চালকের নাম ঠিকানা জানতে চাইলে তারা বাপ ছেলে আমার সাথে তর্ক বাঁধে এবং দোকানে থাকা লোহার রড দিয়ে আমার পিছন দিকে আঘাত করে। পরবর্তীতে সুস্থত হয়ে। গত (১৯ জানুয়ারি) চাঁদপুর জেলা কোটে বাদী হয়ে তিন জনকে আসামী করে অজ্ঞাতনামা আরো তিনজন এর বিরুদ্ধে দন্ডবিধি ১৪৩/৪৪৭/৩২৩/৩২৪/৩২৬/৩০৭/৩৭৯/১০৯/৫০৬/ধারায় এক নালিশ দায়ের করেন সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ০২চাঁদপুর মামলার নং২৮, পরবর্তীতে কোর্টের আদেশ পত্রগুলো মতলব দক্ষিণ থানায় জমা দেওয়া হলে।ওই মামলার আইও এসআই মোস্তফা পূর্বে পরিদর্শন করার পরও সাতদিনের মধ্যে প্রতিবেদন তৈরি করে কোর্টে জমা দেওয়ার জন্য কিন্তু তিনি দায়িত্ব পালন না করে আসামি পক্ষদের সাথে লুকোচুরি করে প্রতিবেদন রেখে দেন। অন্যদিকে এসআই মোস্তফা দায়িত্ব পালন না করে মিচুয়াল এর প্রস্তাব করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here