রাঙ্গুনিয়ার অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের পাশে দাঁড়ালেন যুবদল নেতা গফুর খাঁন

0
4
রাঙ্গুনিয়ার অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের পাশে দাঁড়ালেন যুবদল নেতা গফুর খাঁন

এম. মতিন, চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: চটগ্রামের রাঙ্গুনিয়া পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডের মুরাদগর এলাকার আহাম্মদ খলিল মেম্বার বাড়িতে গ্যাসের সিলিন্ডার থেকে সৃষ্ট ভয়াবহ এক অগ্নিকান্ডে ৯টি বসত ঘর পুড়ে ছাঁই হয়ে যায়। অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্থ এই ৯ পরিবারের পাশে আর্থিক সহয়তা নিয়ে পাশে দাঁড়ালেন চট্টগ্রাম উত্তর জেলা যুবদলের সহসভাপতি, বিশিষ্ট সমাজসেবক, রাজনৈতিক ব্যাক্তিত্ব ও আসন্ন রাঙ্গুনিয়া পৌরসভার মেয়র পদে বিএনপির দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী মোঃ আবদুল গফুর খাঁন। রোববার (১৭ জানুয়ারি) সকালে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ স্থানে পরিদর্শনে যান চট্টগ্রাম উত্তর জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক এস এম মুরাদ চৌধুরী। এসময় তিনি ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের সদস্যদের খোঁজ খবর নেন এবং ঘর মেরামতের জন্য আবদুল গফুর খাঁনের পক্ষে ক্ষতিগ্রস্ত ৯ পরিবারের ক্ষতিগ্রস্তদের হাতে নগদ অর্থ, ঢেউটিন ও সহায়তাসামগ্রী তুলে দেন।

এসময় তিনি বলেন, এই ক্ষতি কোনো ভাবেই পুষিয়ে দেওয়া সম্ভব নয়। আমাদের সকলেই এই ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর পাশে দাঁড়িয়ে যার যার সামর্থ অনুযায়ী সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিই, তাহলে অগুনে সহায়সম্বলহীন হতাশাগ্রস্ত এই পরি কিছুটা হলেও উঠে দাঁড়ানোর সুযোগ পাবেন।’ তাই করোনা ও শীতের এই দূর্যোগের মধ্যেও ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের পাশে দাঁড়ানোর জন্য বিত্তবানদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন তিনি। এসময় উপস্থিত ছিলেন, যুবদল নেতা জাহাঙ্গীর আলম খোকন, মোঃ বেলাল, মোক্তার হোসেন সুজন, মোঃ শাহজাহান, মোঃ বাবুল, মজিবুর রহমান, মসজিদ কমিটির সভাপতি সাঈদুর রহমান, মোঃ জামাল উদ্দিন, মোঃ হারুন, পৌর যুবদল নেতা আব্দুস শুক্কুর, মাহবুল আলম, দিদারুল আলম, সেকান্দার হোসেন, পৌর স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা সাইফুর রহমান, পৌর ছাত্রদল নেতা রাসেদুল ইসলাম, মোঃ মহসিন, মোঃ মিজানসহ বিপুল সংখ্যক জাতীয়তাবাদী দলের নেতাকর্মী ও এলাকাবাসী।

উল্লেখ্য গত ২৩ ডিসেম্বর রাঙ্গুনিয়ার পৌরসভার মুরাদনগর গ্রামের আহাম্মদ খলিল মেম্বার বাড়িতে গ্যাসের সিলিন্ডার থেকে আগুনের সুত্রপাত হয়। মুহুর্তের মধ্যে আগুন চারিদিকে ছড়িয়ে পড়ে। এসময় স্থানীয়রা আগুন নেভানোর চেষ্টা করলেও ততক্ষনে ৭ পরিবারের ৯ টি বসত ঘর পুড়ে ছাঁই হয়ে যায়। এসময় বসতঘরে থাকা নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার ও মূল্যবান মালামালসহ ২৫-৩০ লাখ টাকার সম্পদের ক্ষয়ক্ষতি হয়। আবদুল গফুর খাঁন মুঠোফোনে জানান, অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ালে বিদেশে থেকেও দাঁড়ানো যায়। দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে এগুলো আমার পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মানুষের জন্য সামন্য উপহার মাত্র।
আমি চাই এই সংকটময় সময়ে দেশের ও প্রবাসের প্রতিটি হৃদয়বান মানুষ যেন এই ক্ষতিগ্রস্ত মানুষগুলোর পাশে এসে দাঁড়ায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here