রূপগঞ্জে গৃহহীনদের জমি ও ঘর প্রদান শুরু

0
1
রূপগঞ্জে গৃহহীনদের জমি ও ঘর প্রদান শুরু

রূপগঞ্জ প্রতিনিধি: বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীকের নিজ নির্বাচনী এলাকা রূপগঞ্জে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ভ‚মিহীন ও গৃহহীনদের মাঝে বিনাম‚ল্যে জমি ও ঘর প্রদান করা হয়েছে। ২৩ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে গণভবন থেকে ঘর ও জমির মালিকানা কাগজ হস্তান্তর উদ্বোধন করেন। পরে রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি, বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক উপকারভোগীদের নিকট চাবিও কবুলিয়াত সনদ হস্তান্তর করেন।

নীল টিনের চালা। ছোট ছোট ঘর। শীতলক্ষ্যা নদের তীর ঘেঁষা এমন সুন্দর সুসজ্জিত ঘরগুলো যে কারো মন কাড়বে। প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে রূপগঞ্জ উপজেলায় ভ‚মি ও গৃহহীনদের জন্য ‘স্বপ্ননীড়’ নির্মাণ করা হচ্ছে। এতে উপজেলার ভ‚মিহীন ও গৃহহীন পরিবারগুলোর ভাগ্য বদলে যাবে। তারা পাবে মাথা গোজার ঠাঁই। ২৩ জানুয়ারী ভ‚মিহীন ১৫০ টি পরিবারকে তাদের ঘর বুঝিয়ে দেওয়া হয়। পর্যায়ক্রমে আরো ৩৪৮ জন ভ‚মিহীন পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর ঘর দেওয়া হবে। স‚ত্রটি আরো জানায়, উপকারভোগীদের ২ শতাংশ জমি দিয়ে ঘর তৈরি করে দেওয়া হয়েছে। দুই কক্ষবিশিষ্ট প্রতিটি আধাপাকা ঘরের নির্মাণ ব্যয় ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা। সবগুলো বাড়ি সরকার নির্ধারিত একই নকশায় হয়েছে। রান্নাঘর, সংযুক্ত টয়লেটসহ অন্যান্য সুবিধা রয়েছে এসব বাড়িতে।উপজেলা ভ‚মি অফিসের সার্ভেয়ার মশিউর রহমান ও সার্ভেয়ার জামাল হোসেন জানান, প্রাথমিক পর্যায়ে মুড়াপাড়া ইউনিয়নের মঠির ঘাট এলাকায় ২০ টি পরিবারের জন্য ঘর তৈরি করা হয়েছে।
আর কাঞ্চন পৌরসভার কেন্দুয়া এলাকায় আরো ১৩০ টি পরিবারের জন্য ঘর তৈরি করা হয়েছে।

গোলাকান্দাইল ইউনিয়নের আধুরিয়া এলাকায় ৫০ টি পরিবারের ঘর নির্মাণের জন্য জায়গা বরাদ্দ করা হয়েছে। বাকী পরিবারগুলোর জন্য জায়গা খোঁজা হচ্ছে। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আরিফুল ইসলাম জানান, প্রতিটি পরিবারের জন্য দুই শতাংশ খাস জমি বরাদ্ধ দিয়ে ঘর তৈরি করে দেওয়া হচ্ছে। বাথরুম, গোসলখানা,বারান্দাসহ দুই কক্ষ বিশিষ্ট প্রতিটি আধাপাকা ঘরের নির্মাণ ব্যয় এক লাখ ৭১ হাজার টাকা। উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভ‚মি) আফিফা খান বলেন, ২৩ জানুয়ারী সারাদেশের মত রূপগঞ্জেও ভ‚মিহীনদের ঘর বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। এসময় উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ, রূপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহ্ নুসরাত জাহান, রূপগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহজাহান ভুঁইয়া ,ভাইস চেয়ারম্যান সোহেল আহমেদ, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভ‚মি) আফিফা খাঁন ।

রূপগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন জানিয়েছে, আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর আওতায় ৪৯৮ টি ঘর নির্মাণ হচ্ছে । তার মধ্যে ২০০ টি ঘরের নির্মাণ কাজ প্রায় সমাপ্ত হয়েছে । ১৫০ জন উপকারভোগীর মাঝে জমির মালিকানা হস্তান্তর করা হয়েছে। মুড়াপাড়ায় ২০ জন উপকারভোগীকে চাবি ও কবুলিয়ত সনদ প্রদান করা হয়েছে। তারা আজ থেকে ঘরে বসবাস করতে পারবে। পর্যায়ক্রমে অন্যদের চাবি ও কবুলিয়ত সনদ প্রদান করা হবে। বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক জানিয়েছেন , বঙ্গবন্ধুর কন্যা উপকারভোগীদের প্রায় ১০ লাখ টাকার সম্পদ দিয়েছেন। তিনি ভ‚মিহীন ও গৃহহীনদের মানসম্মতভাবে বাঁচার অধিকার দিয়েছেন। তার জন্য রূপগঞ্জবাসীর পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here