সমাজ বদলানোর প্রচেষ্টায় মাহাথির স্পন্দনের বিজ্ঞাপনচিত্র

অনলাইন ডেস্ক: অতিসম্প্রতি আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষ্যে দ্যা বিগ কন্টেন্ট লি:-এর ব্যানারে নির্মিত হয়েছে #NotHerFault শিরোনামে একটি সচেতনতামূলক বিজ্ঞাপনচিত্র। এই ক্যাম্পেইনের সার্বিক সহযোগিতায় সাথে ছিলো বাংলাদেশের শীর্ষ দৈনিক পত্রিকা প্রথম আলো। মাহাথির স্পন্দনের গল্প ও নির্দেশনায় এই বিজ্ঞাপনচিত্রে অভিনয় করেছেন বিদ্যা সিনহা মীম, ইরফান সাজ্জাদ, মিলি বাশার, ফখরুল বাশার, শিল্পী সরকারসহ আরও অনেকেই। প্রায় ৫ মিনিট দৈর্ঘ্যের এই বিজ্ঞাপনচিত্রটি বানানো হয়েছে বাংলাদেশে ধর্ষণের শিকার যে নারীরা আছেন, তাঁদের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে। আমাদের সমাজে একজন নারী যখন ধর্ষণের শিকার হন, তাঁকে প্রায় একজন অপরাধীর মতোই গণ্য করা হয়। ধর্ষকের চেয়েও, যিনি ধর্ষণের শিকার তাঁর দোষ যেন বেশি! ধর্ষণের কালিমা সারাজীবন তাঁকে টেনে বেড়াতে হয়। অথচ, এমনটা তো হবার কথা না। যেখানে তাঁদের প্রয়োজন আমাদের সহযোগিতা, সেখানেই আমাদেরই এমন দৃষ্টিভঙ্গি তাঁদের জীবনকে করে তুলে আরও দুর্বিষহ। আজীবন ধরে চলে আসা এমনই এক সামাজিক অসঙ্গতি চোখে আঙ্গুল ‍দিয়ে দেখিয়ে দেয়া হয়েছে এই বিজ্ঞাপনচিত্রে, আর এখানেই এই ক্যাম্পেইনের স্বার্থকতা। বিজ্ঞাপনচিত্রটি প্রকাশিত হবার পরমুহূর্ত থেকেই তা নেটিজেনদের প্রশংসায় ভাসছে। যারা ধর্ষণের শিকার, তাঁদের প্রতি আমাদের যে সামাজিক দায়বদ্ধতা, সেই গল্পটিই খুব সুন্দর করে বলা হয়েছে এখানে। নেটিজেন’দের অনেকেই বলছেন, এমনটি হয়তো বা বাস্তবে দেখা যায় না, কিন্তু ঠিক এরকমই তো হওয়া উচিত আমাদের আগামীর ভবিষ্যত যেখানে প্রতিটি মানুষই একে অন্যকে আগলে রাখে।

এই বিজ্ঞাপনচিত্রটি নির্মাণ সম্পর্কে এর নির্মাতা মাহাথির স্পন্দন বলেন, “আমাদের এই গল্পটি বলার একটাই উদ্দেশ্য ছিলো, যারা ধর্ষণের শিকার, তাঁদের প্রতি আমরা যেন আরেকটু সহানুভূতিশীল আচরণ করি, আরেকটু হৃদয়বান হই। আমাদের সমাজে তাঁদের প্রতি যে সামাজিক প্রতিবন্ধতা সৃষ্টি হয়ে আছে, তা যদি কিছুটা হলেও আমরা দূর করতে পারি এই গল্পের মাধ্যমে, সেখানেই আমাদের স্বার্থকতা।”

এছাড়াও উল্লেখযোগ্য, এই বিজ্ঞাপনচিত্রে অভিনয়ের জন্য এর মূল অভিনেত্রী বিদ্যা সিনহা মীম কোন পারিশ্রমিক গ্রহণ করেননি। তার মাধ্যমে এরকম একটি সামাজিক ব্যাধি সম্পর্কে যদি মানুষের দৃষ্টিভঙ্গি পাল্টায়, এটি নিয়ে যদি সবার মাঝে সচেতনতা তৈরি হয়, তাহলে মানুষের আশীর্বাদই হবে তার জন্য সবচেয়ে বড় পারিশ্রমিক, এমনটিই মনে করেন তিনি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে